মাল্টা
150.00৳
বিতরনের তারিখ: 1-2 days
+ -
গন্তব্যস্থল
*
*
পরিবহন পদ্ধতি
নাম
আনুমানিক ডেলিভারি
মূল্য
কোনও শিপিংয়ের অপশন নেই

মাল্টা হচ্ছে Citrus × sinensis উদ্ভিদের ফল। এর ইংরেজি নাম Orange বা Sweet orange,[২] যদিও অনেকে ভুল করে একে grapefruit (C. paradisi) বলে থাকেন।[৩] এছাড়া Mandarin orange-কে বাংলায় কমলা বলা হয়, যা C. reticulata উদ্ভিদের ফল।

refer to caption
 
মাল্টা ফল
refer to caption
 
মাল্টা গাছ

মাল্টা ফলটি জাম্বুরা (Citrus maxima) এবং কমলা (Citrus reticulata) এই দুই ফলের শংকরায়নের মাধ্যমে উদ্ভাবন করা হয়েছে।[৪] 'বারি মাল্টা ১' নামে একটি উন্নত মাল্টার জাত বাংলাদেশে উদ্ভাবিত হয়েছে এবং বাংলাদেশের পাহাড়ি এলাকাগুলোতে এর কিছু চাষ হচ্ছে। বাংলাদেশে এটি বেশ জনপ্রিয় ফল, তবে স্থানীয় উৎপাদন খুবই কম; বেশির ভাগই বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়। উর্দু ভাষাতেও একে 'মাল্টা' বলা হয়। এছাড়া হিন্দিতে একে 'সান্তারা' এবং অসমীয়া ভাষায় একে 'সুমথিৰা টেঙা' বলা হয়।

মালটার পুষ্টিগুণ

মালটাতে আছে ভিটামিন বি, ভিটামিন সি(Vitamin C), ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, ফসফরাস, এবং চর্বিমুক্ত ক্যালরি। এছাড়া মালটায় প্রচুর পরিমাণে ফ্লামনয়েট রয়েছে। আছে শরীরের জন্য প্রয়োজনী নিউট্রিসাস। শুধু তাই নয়, প্রচুর পরিমাণে মিনারেলসও রয়েছে এতে।

চলুন এবার জেনে নেই মালটার অসাধারণ কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত-

>> মালটাতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, যা রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।

>> মালটা ইনফেকশন প্রতিরোধে সহায়তা করে। এটি প্রদাহ(Inflammation) জনিত রোগ সারিয়ে তোলে।

>> মালটাতে ম্যাগনেসিয়াম থাকার কারণে ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। ডায়াবেটিস প্রতিরোধে সহায়তা করে। এন্টি অক্সিডেন্ট থাকার কারণে ওজন(Weight) কমাতেও সহায়তা করে।

>> প্রতিদিন একটি মালটা খাওয়ার অভ্যাস আপনার দৃষ্টিশক্তিকে ভালো রাখে। কারণ মালটায় রয়েছে ভিটামিন এ, সি ও পটাসিয়াম। এ ভিটামিনগুলো আপনার দৃষ্টিশক্তির জন্য বেশ উপকারী।

>> এটি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ ফল যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমূহের সমৃদ্ধ উৎস। এটি ত্বকের(Skin) সজীবতা বজায় রাখে এবং ত্বকের বলি রেখা প্রতিরোধ করে লাবণ্য ধরে রাখে।

>> এক গ্লাস মাল্টার জুসকে ভিটামিন সি এর সবচেয়ে কার্যকর উৎস বলে মনে করা হয়। এটাকে ভিটামিন সি ট্যাবলেট হিসেবেও গ্রহণ করা যায়।

>> মালটার ভিটামিন সি উপাদান আমাদের শরীরে(Body) ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। এটি আমাদের শরীরের কোলন ক্যান্সার ও ব্রেস্ট ক্যান্সারের অন্যতম সেল প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে।

>> উচ্চ মাত্রায় ওষুধ(Medicine) সেবনের সময় মালটার লো-কলেস্টরেল শরীরে ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রোধে সহায়তা করে।

>> এতে উপস্থিত পটাশিয়াম ইকেট্রোলাইট ব্যালেন্স বজায় রাখে এবং কার্ডিওভাস্কুলার সিস্টেম ভালো রাখতে সহায়তা করে।

>> মালটা পাকস্থলীকে(Stomach) সুস্থ রাখে। নিয়মিত মালটা খাওয়ার অভ্যাস পাকস্থলীর আলসার ও কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে সুরক্ষা দেবে। পাকস্থলীকে রাখবে সবল।

>> গবেষণায় জানা গেছে যে, মালটাতে উপস্থিত লিমিণয়েড, মুখ(Face), ত্বক, ফুসফুস, পাকস্থলী কোমল ও স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে থাকে।

>> মালটাতে উপস্থিত বিটা ক্যারোটিন সেল ড্যামেজ প্রতিরোধে সহায়তা করে। এতে উপস্থিত ক্যালসিয়াম দাঁত ও হাঁড়ের(Bone) গঠনে সাহায্য করে।